Wednesday , 16 October 2019
Home » Computer Tips » Computer Bottleneck কী?কিভাবে বাচবেন?

Computer Bottleneck কী?কিভাবে বাচবেন?

হ্যালো বন্ধুরা , আমি আমিনুল হক ,আর আজকে আমরা Explain করব Computer Bottleneck ।

আর এই Bottleneck ই হতে পারে আপনার Computer slow হওয়ার কারণ।

মনে করুন আপনি নতুন একটি Pc কিনে নিয়ে আসলে এবং মাত্র কিনে আনা PC থেকে আপনি যেমন performance / speed আশা করছিলেন সেটি আপনি পাচ্ছেন না , That because maybe আপনার Pc Bottlenecked .

সো এই Bottleneck কি ?এটি কিভাবে আপনার পিসি তে effect করে এবং এটিকে reduce করা যায় এই নিয়েই আজকে আমরা আলোচনা করব।

সো,প্রথমেই জেনে নেই এই Bottleneck জিনিস টা কী ?

Bottleneck এর বাংলা অর্থ হচ্ছে বোতলের গলা ,নিচের ছবিটিতে খেয়াল করেন বোতলটির নিচের দিক অনেক মোটা কিন্তু মুখের দিকটা অনেক চিকন।

Computer Bottleneck example
বোতল

এখন এই বোতলের ভেতরের বল গুলা যদি বের করতে চান এবং বোতলটিকে যদি উল্টাইয়া ফেলেন তাহলে দেখবেন বোতলের উপর থেকে কালার গুলো খুব দ্রুত আসবে ্কিন্তু মূখের কাছে এসে স্লো হয়ে যাবে ।

এই সেইম ঘটনা টাই ঘটে আপনার পিসির সাথে , আপনার পিসিতে অনেকগুলো পার্টস আছে এবং এগুলো একটির সাথে অন্যটি যুক্ত , তাই যখন একটা পার্টস স্লো হয়ে যাইয় তখন বাকী গুলাও কাজ করে না ঠিক মত। কারণ সেগুলোতে স্পিড থাকলে কী হবে একটা তো বাকী গুলাকে ধরে আটকাই রাখতেছে। এইটাই হচ্ছে Bottleneck issue যার কারণে PC slow হয় ।

By The way চলুন বোতল ছেড়ে পিসি তে আসি Computer Bottleneck এ।

For example ,মনে করুন আপনি নতুন একটি PC Build করবেন এবং আপনার বাজেট অনেক বেশী এবং আপনার বাজেট এর ৮০% টাকা দিয়ে একটা খুভ High speed / High quality graphics card কিনলেন , কিন্তু আপনি যে CPU টা কিনলেন সেটা অনেক স্লো।

এখন খেয়াল করুন , আপনি পিসি নিয়ে বাসায় আসার পরে আপনার চাহিদা থাকবে আকাশ চোয়া । কারণ আপনি এত দামি একটা গ্রাফিক্স কার্ড কিনেছেন গেইম খেলবেন বলে।

কিন্তু এখন আপনি গেইম খেলে সেই চাহিদা মত Performance পাচ্ছেন না, এর কারন টা কী ?

এর কারন হচ্ছে GPU কিন্তু CPU এর উপর ডিপেন্ড করে,CPU যখন mathematical ডাটা গুলো GPU এর কাছে ট্রান্সফার করে তখন GPU সেগুলোকে Analyse করে গ্রাফিকালি আপনার সামনে present করে।

এখন CPU যদি দ্রুত ডাটা না দিতে পারে তাহলে GPU কে প্রথম যে ডাটা দিবে সেটা সে খেয়ে হা করে বসে থাকবে যে CPU কখন আরেকটা ডাটা দেবে, So CPU যখন স্লো হবে GPU তখন স্লো কাজ করবে।

তার মানে , একটা পার্টস যখন স্লো হয়ে যাবে আরেকটা ভাল পার্টস ও তখন ঠিক মত কাজ করতে পারে না,মানে তার ফুল প্রটেশিয়াল টা আপনি ইউজ করতে পারবেন না,যেটা আমাদের এই Example এর বেলায় হয়েছে।

আশা করি Bottleneck জিনিসটা আপনারা বুঝতে পেরেছেন তার পরেও চলুন আরো একটু সহজ ভাবে আপনাদের বুঝাইয়া দেই।

মনে করুন একটা স্কুলের মাঠের এক কোনায় অনেকগুলো ইট রাখা আছে , এবং স্কুলের টিচার রা চিন্তা করল যে এই ইট গুলো মাঠের অন্য প্রান্তে নেবে, সো তারা কি করল তাদের স্কুলে ১০০ জন Student আছে তাদের মাঠের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্ত পর্যন্ত লাইন ধরে দাড় করাল,এবং এক জন আরেজনের হাতে একটা একটা করে ইট পাস করবে এবং এইভাবে মাঠের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে সহজেই ইট পাস হয়ে যাবে।এটি খুভি সহজ একটা উপায়।

এখন সমস্যাটা হচ্ছে অন্য যায়গায় এই ১০০ জনের মাঝে একজন Student একটু দুর্বল এবং সে একটা ইট পাস করার জন্য অন্যদের তুলনায় একটু বেশি সময় নেয়,এখন বাকি ৯৯ জন যদি খুভ স্ট্রং এবং ফাস্ট ও হয় তাও তাদের কাজের প্রসেসটা স্লো হয়ে যাবে ,কারণ সে যখন একটা ইট আস্তে করে পাস করবে সেই সময়ে একজন একটা ইট নিয়ে দাড়াই থাকবে সে এই ইট টা দেইয়ার পরে অন্য ইট দেয়ার জন্য , অন্য দিকে তার পরের যারা আছে তারাও দাড়াইয়া থাকবে আরেকটা ইট পাওয়ার জন্য সুতরাং দেখা যাচ্ছে এই এক জনের জন্য সবাই স্লো হয়ে পরেছে।

সো এখন আপনি খুভ হাই কোয়ালিটি দামী CPU , GPU সব কিছু নিলেন কিন্তু স্টোরেজটি নিলেন অনেক স্লো,মানে একটা পুরান আমলের হার্ড ডিস্ক নিলেন তখন কী হবে ,এখন আপনি ত ভাববেন এখন আপনার CPU ভাল GPU ভাল RAM ভাল সব ভাল এবারতো আর Bottleneck হতেই পারে না।

কিন্তু যখন আপনি ফায়ারফক্স ওপেন করতে যাবেন তখন দেখবেন ঘুরতেই আছে ঘুরতেই আছে ১০ সেকেন্ড পরে ফায়ারফক্স ওপেন হল ,তখন ত আপনি ক্ষেপে যাবেন যে কী হল CPU ভাল GPU ভাল RAM ভাল সব ভাল তার পরেও স্লো হচ্ছে?

কারণ এই গ্রাফিক্স কার্ড আর সি পি ইউ ত কাজ করবে তখনি যখন আপনার হার্ড ডিস্ক তাদের ডাটা দিতে পারবে।

যেমন আপনি ক্লিক করেছেন ফায়ারফক্স তখন আপনার CPU এর ত তাকে খুজতে হবে তো সে খুজতেছে তখন আপনার হার্ড ডিস্ক আস্তে আস্তে তাকে দেখাবে যে এটা চাও? সে বলবে না ,তার পরে আস্তে আস্তে আরেকটা দেখাবে সে বলবে না এবং আস্থে আস্থে সে খুজে পাবে ফায়ারফক্স কে।তার ,মানে আপনার হার্ড ডিস্ক যখন স্লো হবে তখন সে CPU কে ডাটা গুলো প্রেজেন্ট করবে Slowly এবং আপনার পিসি স্লো হয়ে যাবে আর এই স্টোরেজ নিয়ে আমি অন্য একটা পোস্ট করেছি নিচ থেকে সেতা দেখে নিতে পারেন –

SSD vs HDD |জেনেনিন HDD এবং SSD এর মাঝে কী পার্থক্য

তার মানে মধ্যাকথা হল আপনার পিসির পার্টস গুলোর ব্যালেন্স রাখতে হবে তাহলে আপনি Bottleneck টা কমিয়ে আনতে পারবেন।

কিন্তু মনে রাখুন Bottleneck টাকে আপনি ১০০% বন্ধ করতে পারবেন না সেটাকে কমিয়ে আনতে পারবেন, মানে একটা একটা GPU এর সাথে আপনি সেইম স্পিড এর CPU এবং RAM মিলিয়ে কখনোই কিনতে পারবেন না,সো এই Bottleneck যেহেতু আপনি বন্ধ করতে পারবেন না সো চেস্টা করবেন সেটাকে কমিয়ে আনার মানে সেটাকে extreme পর্যায়ে না রেখে যতটা সম্ভব কমিয়ে আনবেন।

এখন কিভাবে বুঝবেন আপনার পিসিতে Bottleneck আছে কী না এর জন্য আপনার পিসির পার্টস গুলোকে Analyse করতে হবে ,কিন্তু আপনি যদি সেগউলো না বুজহেন তাহলে কী হবে? এর জনু একটা ওয়েবসাইট আছে সেটা হল https://pcpartpicker.com/ এখানে আপনার পিসি এর সব ডিটেইলস দিতে হবে তাহলে সাইট টি আপনার দেওয়া তথ্য গুলো যাচাই করে বলে দেবে সেখানে কতটা Bottleneck আছে। এবং সেই কাজটি আপনি নতুন পিসি কেনার আগেও করতে পারেন একতা পিসি কেনার সেটার কনফিগ গুলা দিয়ে সাইতে স্কেন করে নেবেন তাহলে আপনি একটা ভাল মানর পিসি কজিনতে পারবেন।

আর এই ব্যাপার টা শুধু পিসি এর সময় না যেকোন ইলেক্টনিক জিনিসেই হতে পারে একটা পার্টস এর থেকে যখন আরেকটা স্লো হয়ে যাবে তখন Bottleneck তৈরী হবে।

সো এই ছিল আজকের পোস্ট ,আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন Computer Bottleneck কী এবং কীভাবে এর থেকে বাচা যায়।

পোস্টটি ভাল লাগলে একতা লাইক করবেন , কমেন্ট করে জানিয়ে দেবেন আপনার পিসিতে কত % Bottleneck আছে ।

সবাই ভাল থাকুন, সুস্থ থাকুন,আপনার Computer Bottleneck পরিক্ষা করুন।

কোন ভুল হলে ক্ষমা করবেন।

ধন্যবাদ

About Mir Md Aminul Haque

প্রযোক্তিকে ভালবাসি ,নিত্য জানতে চাই নতুন কিছু,ছড়িয়ে দিতে চাই উজার করে নিজের জ্ঞান সবার মাঝে।

Check Also

OTG ক্যাবলের চমৎকার কিছু ব্যবহার Awesome uses of OTG Cable

OTG Cable এর চমৎকার কিছু ব্যবহার।

বর্তমানে যে smarthpne গুলো বাজারে আসছে এগুলোর বেশীরভাগেই রয়েছে OTG Cable এর সুবিধা। তাই আজকের…

2 comments

  1. Like!! Thank you for publishing this awesome article.

  2. You are my intake, I own few blogs and rarely run out from brand :). “Yet do I fear thy nature It is too full o’ the milk of human kindness.” by William Shakespeare.

Leave a Reply

Your email address will not be published.